ডিমলায় লাঞ্ছিত হওয়ার বিচার পাচ্ছেন না এক স্কুল শিক্ষিকা!

মোঃ বাদশা সেকেন্দার, ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি- নীলফামারীর ডিমলায় উত্তর তিতপাড়া সোনাবেচাটারী গ্রামে লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ দিয়ে ঘটনার বিচার পাচ্ছেন না মর্মে অভিযোগ করেছেন এক স্কুল শিক্ষিকা।

নির্যাতিতা শিক্ষিকা তারাবানু বলেন, তিনি দীর্ঘদিন যাবত ব্র্যাক স্কুল ঘরটি ভাড়া হিসাবে ২০১৬ সালে ২১ হাজার ৬ শত টাকা জামানত দিয়ে প্রতি মাসে ৪ শত টাকা করে ভাড়া প্রদান করছিলেন। এর এক পর্যায়ে গত ডিসেম্বর/২০১৮ ইং মাসে ব্র্যাক শিক্ষা প্রজেক্টের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ব্র্যাক স্কুলের সকল আসবাবপত্র তারাবানু ২৬ ডিসেম্বর/২০১৮ সালে ১৬ হাজার টাকার বিনিময় ব্র্যাক কর্তৃপক্ষের নিকট হতে ক্রয় করেন এবং মেয়াদ শেষ হওয়ার কারনে উন্নয়ন গবেষনা ফাউন্ডেশন “উগফা” ভাবনা শিক্ষা নিকেতন নামে স্কুলটি ১লা জানুয়ারী-১৯ হতে স্কুলটি পরিচালনা করেছিল।

তিনি অভিযোগ করেন, এমতাবস্থায় ঘর মালিক শফিকুল ইসলাম অন্য এনজিও’র মাধ্যমে স্কুল পরিচালনা করতে দিবে না মর্মে স্কুল শিক্ষিকাকে লাঞ্ছিত করে স্কুল ঘরের আসবাবপত্রের মধ্যে আরএফএল চেয়ার-৩০টি, টেবিল-৬টি, ফ্যান-২টি, ট্র্যাংক-১টি, র‌্যাট-১টি ও ব্ল্যাকবোর্ড-৬টি আত্মসাতের জন্য রাতের অন্ধকারে বাড়ীর মালিক শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে তার নিজ বাড়ীতে নিয়ে স্কুল ঘরে তালা লাগিয়ে দেয়।

তারাবানু আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ায় ন্যায় বিচারের স্বার্থে নিজে বাদী হয়ে গত ৩ এপ্রিল ডিমলা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু এযাবত উক্ত স্কুল শিক্ষিকাকে লাঞ্ছিত করা সহ লুটকৃত মালামালের কোন প্রকার প্রতিকার না পাওয়ায় বর্তমানে সে পার্শ্ববর্তী দিগলটারী ডাঙ্গাপাড়া গ্রামে সোলায়মানের বাড়ীর একটি রুম ভাড়া নিয়ে নতুন করে পাঠদান করে আসছে। এবং রুমে পর্যাপ্ত পরিমাণ আসবাবপত্র না থাকায় ছাত্র/ছাত্রী মেঝেতে চট বিছিয়ে খুবকষ্টে লেখাপড়া করছে।

অপর দিকে পূর্বের ঘর মালিক ২৭ জন ছাত্র/ছাত্রীদের অভিভাবকদের বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদর্শন করে নতুন স্কুল ঘরে যেতে বাঁধা প্রদান করছে বলে দাবী করেন শিক্ষিকা তারা বানু।

এ বিষয়ে অভিভাবকরা মনে করেন, বাঁধা প্রদান করায় ছাত্র/ছাত্রীদের লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এলাকাবাসীরা মনে করেন শিক্ষিকাকে লাঞ্ছিত এবং মালামাল উদ্ধারে প্রশাসনের দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’