প্রেমের টানে ১৫ বছর বয়সী ভারতীয় কিশোরী বাংলাদেশে

নীলফামারীনিউজ, ডেস্ক রিপোর্ট- প্রেমের টানে ভারত থেকে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে প্রেমিকের কাছে ছুটে এসেছেন প্রেমিকা রোজিনা খাতুন (১৫)। বাংলাদেশে প্রেমিকের কাছে আসার ১৪ ঘণ্টা পর তাকে উদ্ধার করে বিজিবি। শনিবার দুপুরে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ওই কিশোরীকে বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করা হয়ে।

কিশোরী রাজিয়া খাতুন ভারতের কোচবিহার জেলার দিনহাটা থানার কাটাতারের বাহিরে বসবাসকারী খারিদা হরিদাস গ্রামের আনু মিয়ার মেয়ে।

সীমান্তবাসী রফিকুল ইসলাম ও আইজ উদ্দিন জানান, গত শুক্রবার রাতে রোজিনা খাতুন পরিবারের অজান্তে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত পেরিয়ে উপজেলার গোড়কমন্ডল গ্রামের মাহালম মিয়ার ছেলে প্রেমিক জাহিদ হাসানের (২০) কাছে প্রেমের টানে চলে আসেন। এনিয়ে রোজিনার অভিভাবক খারিদা হরিদাস বিএসএফ ক্যাম্পে বিষয়টি জানান। বিএসএফ ওই কিশোরীকে উদ্ধারের জন্য শনিবার সকালে গোরকমন্ডল বিওপি বিজিবি সদস্যদের কাছে চিঠি পাঠান। বিজিবির তৎপরতায় প্রেমিকের পরিবার সদস্যরা চেষ্টা করে লালমনিরহাট জেলার কুলাহাট বাজার থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে । পরে নাওডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুসাব্বের আলীর মাধ্যমে বিজিবির কাছে হস্তান্তর করে তারা।

এদিকে সীমান্তের আর্ন্তজাতিক ৯৩০নং মেইন পিলারে পাশে নোম্যান্স ল্যান্ড বিজিবি-বিএসএফের মধ্যে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে কিশোরীকে অভিভাবকের কাছে তুলে দেয়া হয়।

লালমনিরহাট ১৫ বিজিবি শিমুলবাড়ী কোম্পানী কমান্ডার গোলাম মোহাম্মদ আলী জানান, বিএসএফের চিঠির প্রেক্ষিতে মেয়েটিকে উদ্ধার করে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফেরত দেয়া হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন গোরকমন্ডল ক্যাম্পের হাবিলদার মহাসিন কবির, ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন, পারভীন বেগম এবং ভারতের ৩৮ ব্যাটালিয়ন খারিদা হরিদাস ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার অশোক কুমার।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’