রংপুরে সেপটিক ট্যাংক থেকে মোবাইল তুলতে গিয়ে ২ তরুণের মৃত্যু!

নীলফামারীনিউজ, ডেস্ক রিপোর্ট- রংপুরের পীরগঞ্জে সেপটিক ট্যাংকে পড়ে যাওয়া মোবাইল ফোন উদ্ধার করতে গিয়ে দুলু মিয়া ও এনামুল হক নামে দুই তরুণ মারা গেছে। এ ঘটনায় আরেকজনের অবস্থাও গুরুতর।

সোমবার (১০ জুন) রাতে উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের বড়গোলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

রামনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর জানান, ওই ইউনিয়নের বড়গোলা মেসের উদ্দিনের পুত্র দুলু মিয়া সোমবার রাতে প্রকৃতির কাজ সারতে টয়লেটে যায়। এ সময় তার হাতে থাকা মোবাইল ফোন সেপটিক ট্যাংকে পড়ে যায়। ফোনটি উদ্ধারের জন্য একটি বাঁশ বেয়ে ট্যাংকে নামে দুলু মিয়া। তার ওপরে উঠতে দেরি হওয়ায় প্রতিবেশী আজহার আলীর পুত্র এনামুল হকও ট্যাংকে নেমে পড়ে। দুজনের উঠে আসার জন্য কোনো সাড়া-শব্দ না পেয়ে শাহিন নামে আরেক যুবক সেখানে নামে। তারা তিনজনেই উপরে না উঠায় ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয় স্থানীয়রা।

পীরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানায়, খবর পেয়ে সেপটিক ট্যাংক থেকে ডুবুরি নামিয়ে তাদের তিনজনকে উদ্ধার করা হয়। এরমধ্যে কলেজছাত্র এনামুল হক সেপটিক ট্যাংকে শ্বাসকষ্টে এবং দুলু মিয়াকে হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায়। অপর যুবক শাহিন মিয়াকে পীরগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থাও গুরুতর।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’