নাতির পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দিলেন দাদি

ডেস্ক রিপোর্ট-প্রেমিক নাতির বিয়ের খবরে ক্ষি’প্ত হয়ে রাতে ঘরে ডেকে নিয়ে পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দিলেন দাদি। গুরুতর অব’স্থায় নাতিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামে সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাতে এ ঘ’টনা ঘ’টে। রাতেই গুরুতর অব’স্থায় নাতিকে আলমডাঙ্গা শহরের শেফা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

শেফা ক্লিনিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গুরুতর অব’স্থায় নাতিকে ক্লিনিকে আনা হয়। নাতির কেটে ফেলা পুরুষা’ঙ্গে আটটি সেলাই দেয়া হয়েছে। তার অব’স্থা আশ’ঙ্কাজ’নক হওয়ায় মঙ্গলবার বিকেলে আলমডা’ঙ্গা থেকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। তবে এ ঘ’টনায় এখন পর্যন্ত মা’মলা হয়নি।

স্থানীয় সূত্র জা’নায়, আলমডা’ঙ্গা উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের এক ব্যক্তি দুই সন্তান ও স্ত্রীকে রেখে ১১ মাস আগে বিদেশ যান। এ সুযোগে প্রতিবেশী নাতির স’ঙ্গে প্রেমের স’ম্পর্ক গড়ে তোলেন প্রবাসীর স্ত্রী। প্রেমের স’ম্পর্ক দাদি-নাতির শারী’রিক স’ম্পর্কে রূ’প নেয়।

এরই মধ্যে অবিবাহিত প্রেমিক নাতির বিয়ে দিনক্ষণ ঠিক হয়। নাতির বাড়িতে চলছিল বিয়ের আয়োজন। বিয়েতে প্রেমিক নাতির স’ম্মতি ছিল। এতে রাগে-ক্ষো’ভে ফে’টে পড়েন দাদি। সোমবার রাতে প্রেমিক নাতিকে মোবাইল ফোনে শারী’রিক স’ম্পর্ক করার জন্য ডে’কে নেন দাদি। পরে শারী’রিক স’ম্পর্কের সময় ব্লে’ড দিয়ে নাতির পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দেন দাদি। এতে গু’রুতর আ’হত হন প্রেমিক নাতি। অব’স্থা গু’রুতর হওয়ায় চিকিৎসার জন্য নাতিকে আলমডা’ঙ্গা শেফা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। পরে কে’টে ফেলা পুরুষা’ঙ্গে আটটি সেলাই দেয়া হয়।

শেফা ক্লিনিকের চিকিৎসকরা জা’নিয়েছেন, অতি’রিক্ত র’ক্তক্ষ’রণের কারণে ওই ব্য’ক্তির অব’স্থা আশ’ঙ্কাজ’নক হওয়ায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পা’ঠানো হয়।

ঘ’টনার স’ত্যতা নি’শ্চিত করে আলমডা’ঙ্গা থা’না পু’লিশের ভারপ্রা’প্ত ক’র্মক’র্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান মুন্সি বলেন, বিষয়টি আমি শু’নেছি। কেউ এ ব্যা’পারে অ’ভিযোগ করেনি। অ’ভিযোগ পেলে তদ’ন্ত করে আ’ইনগত ব্যব’স্থা নেব।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’