ডোমারে দুই লাখ ৬০ হাজার টাকা মূল্যের বাসগৃহ পাচ্ছেন ১২৮ জন

নীলফামারীনিউজ, ডোমার অফিস- প্রধানমন্ত্রীর “গ্রাম হবে শহর”প্রকল্পের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর কতৃক গ্রামীন অবকাঠামো সংস্কার (টিআর/কাবিটা)কর্মসূচীর আওতায় নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় গৃহহীনদের জন্য দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। দুটি প্রকল্পের আওতায় ১ শত ২৮জন উপকারভোগী এ ঘড় পেয়েছেন।

রোববার ডোমার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ, নির্বাহী অফিসার উম্মে ফাতিমা,ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক সরকার ও বেগম রৌশন কানিজ বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের দক্ষিন নয়ানী বাকডোকরা গ্রামের উপকারভোগী নাজমা আকতারের কাছে ঘড় হস্তান্তর করে কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের ২০১৮-২০১৯অর্থ বছরে গ্রামীন অবকাঠামো সংস্কার(টিআর/কাবিটা) কর্মসূচীর আওতায় প্রধানমন্ত্রী কতৃক ঘোষিত (যার জমি আছে কিন্তু পাকা ঘড় নির্মানের সামর্থ নেই) অসহায় গৃহহীনদের জন্য ৩২টি ঘড়ের নির্মান কাজ শেষ হয়েছে। এর আওতায় প্রতিটি ঘড়ের নির্মান ব্যায় ধরা হয়েছে ২লাখ ৫৮হাজার ৫শত ৩১ টাকা করে। এসব ঘড় নির্মান কাজ বাস্তবায়নের জন্য ইতিমধ্যে একটি নিতিমালা প্রনয়ন করা হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত ৫সদস্য বিশিষ্ট একটি পিআইসি কমিটি গঠন করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে ফাতিমা এবং উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জিয়াউর রহমানের তত্ববধানে নির্মান কাজ বাস্তবায়ন করা হয়।

এসব দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ পেয়ে উপকারভোগীরা খুবই খুশি। উপকারভোগী নাজমা আকতার জানান, কোনদিন কল্পনা করিনি আমার একটি পাঁকা ঘড় হবে।প্রধানমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। তিনি দেশের অসহায় গরীব মানুষজনদের নিয়ে চিন্তা করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান জানান, প্রকৃতপক্ষে যাদের জমি আছে কিন্তু পাকা ঘড় করার মতো সামর্থ নেই তাদেরকে দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মানের আওতায় আনা হয়েছে।

একই সাথে ২০১৮-২০১৯অর্থ বছরের আশ্রায়ন-২ প্রকল্পের “যার জমি আছে কিন্তু বসবাসযোগ্য ঘড় নেই তার নিজ জমিতে গৃহ নির্মান” কর্মসূচীর আওতায় ৯৬জনকে টিনের ঘড় নির্মান করে দেয়া হচ্ছে। এর প্রতিটি ঘড়ের নির্মান ব্যায় ধরা হয়েছে এক লাখ টাকা করে। নির্মান কাজ শেষ হয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যে ঘরগুলো উপকাভোগীদের মাঝে হস্তান্তর করা হবে।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’