নীলফামারীর ইটভাটার খালে কেন গিয়েছিল জেএসসি পরীক্ষার্থী ময়না?

নীলফামারীনিউজ, এডিটোরিয়াল রিপোর্ট- জেএসসি পরীক্ষা দেয়া হলো না ময়না দেবনাথের। শনিবার (২ নভেম্বর) হতে পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগের রাত শুক্রবারে নিখোঁজ হয় সে।

শনিবার সকালে তার মরদেহ পাওয়া গেল বাড়ীর পাশেই ইটভাটার একটি খালে। সে নীলফামারী জেলা সদরের গোড়গ্রাম স্কুল এন্ড কলেজের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী। পুলিশ ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ পাঠিয়েছে মর্গে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নীলফামারী সদর উপজেলার গোড়গ্রাম যুগিপাড়ার আবুল দেবনাথের মেয়ে ময়না দেবনাথকে শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে বাড়ীতে পাওয়া যাচ্ছিল না। শনিবার সকালে ভাটার শ্রমিকেরা মরদেহ পানিতে ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয়।

এ ব্যাপারে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তার গলায় দাগ দেখা গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী জানান, ময়নাকে পাশবিক নির্যাতনের পর হত্যা করে মরদেহ পুকুরের পানিতে ফেলে রেখে গেছে দুর্বৃত্তরা। তাই, ঘটনার বিষয়ে অধিকতর তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের কথা বলেন তারা।

নীলফামারী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোমিনুল ইসলাম বলেন, শনিবার সকালে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ময়না তদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’