নীলফামারীতে গুজবের সুযোগে কয়েক হাজার মণ লবণ বিক্রি!

জুলফিকার আলী ভূট্টো, সিনিয়র স্টাফ করেসপন্ডেন্ট- পেঁয়াজের মত লবনের দামও বাড়বে এই গুজবে নীলফামারী জেলার বিভিন্ন উপজেলার হাট-বাজারে লবন কেনার হিড়িক পড়েছিল মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর)। একেক জন ৫কেজি থেকে শুরু করে ৩০কেজি পর্যন্ত লবন কিনেছেন সাধারন মানুষজন। এ সুযোগে কিছু দোকানদার অতিরিক্ত মূল্যে লবন বিক্রি করে।

এ ঘটনায় জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে ৮জনকে আটক করেছে পুলিশ। গুজবে কান না দিতে জনসাধারনকে সতর্ক করে মাইকিং করে প্রশাসন। এতে ভেস্তে গেছে লবণ নিয়ে নীলফামারী অস্থির করার অপচেষ্টাটি।

মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে সাধারন মানুষের মাঝে লবন কেনার হিড়িক দেখা যায়। বিকেলে জেলা সদরের গাছবাড়ী বাজারে গিয়ে দেখা গেছে সাধারণ মানুষজন হুড়াহুড়ি করে দোকান থেকে শুধু লবনই কিনেছেন। নিমিষেই শেষ হয়ে যায় গাছবাড়ী বাজারের কয়েকটি দোকানের লবন।

কয়েকজন লবন ক্রেতা সেসময় জানান, লোকজন বলাবলী করছে দু’একদিনের মধ্যে পেঁয়াজের মতো লবনের দামও বাড়বে এই শুনে লবন কিনতে এসেছি। পুরাতন ষ্টেশন এলাকার এক গৃহবধূ গুজব শুনে প্রতিবেশির কাছ থেকে টাকা ধার করে ৫ কেজি লবন কেনেন।

গাছবাড়ী বাজারের দোকানদাররা জানান মঙ্গলবার দুপুরের পর নিমিশেই তাদের দোকানের সব লবন বিক্রী হয়ে যায়। এদিকে জেলার সৈয়দপুর, ডোমার, কিশোরগঞ্জ, জলঢাকা ও ডিমলা উপজেলাও একই অবস্থা ছিল।

বিভিন্ন সূত্র জানায়, এই গুজবে জেলায় কয়েক হাজার মণ লবন বিক্রি হয়েছে। অতিরিক্ত মূল্যে লবন বিক্রি করায় জেলার ডোমার উপজেলায় ৫জন, ডিমলা উপজেলায় ২জন এবং সদর উপজেলায় ১জনকে আটক করা হয়। গুজবে কান না দিতে প্রশাসন, পৌরসভা, ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর এবং তথ্য অধিদপ্তর থেকে প্রেসনোটসহ শহরে মাইকিং করা হয়। ফলে প্রশানের তৎপরতায় বন্ধ হয় লবণ নিয়ে বিভ্রান্তি, ভেস্তে যায় গুজব।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’