দেশের প্রথম যে গ্রাম ৩০০ সিসি ক্যামেরার আত্ততায়!

নীলফামারীনিউজ, ডেস্ক রিপোর্ট- পাবনার ঈশ্বরদীর সাহাপুর ইউনিয়নের তিলকপুর গ্রামে ৩০০ সিসি ক্যামেরা বসিয়ে গ্রামকে নিরাপত্তার চাদরে ঢাকল গ্রামের কিছু উদ্যোগী যুবক। তাদের দাবি, বাংলাদেশে এই প্রথম কোন গ্রাম সিসি ক্যামেরার আওতায় এল।

শুক্রবার দুপুরে তিলকপুর হাফিজিয়া মাদরাসা প্রাঙ্গণে এ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

তিলকপুর যুব সমাজ ও তিলকপুর হাফিজিয়া মাদরাসা কর্তৃপক্ষের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উজ্জ্বল হোসেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এলাকার তিন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান, আব্দুস সামাদ চুন্নু ও জামাত মণ্ডল।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শরীফ পান্না, আবদুল মান্নান মাস্টার, অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান, আইনুল হক প্রামাণিক, ফিরোজ হোসেনসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

যুবকদের যুগপোযোগী এ কাজের প্রশংসা করে বক্তারা বলেন, এতে করে এ গ্রামটি আরও সুরক্ষিত থাকবে।

এ কাজের অন্যতম উদ্যোক্তা ও সমন্বয়কারী শাহীন রানা জানান, তাদের এই তিলকপুর গ্রামই দেশের মধ্যে সর্বপ্রথম সিসি ক্যামেরার আওতায় আসা ডিজিটালাইজড গ্রাম।

তিনি জানান, তাদের এ মনিটরিং ২৪ ঘণ্টা সক্রিয় থাকবে। এজন্য ছয়টি মনিটর রাখা হয়েছে। কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে হাফিজিয়া মাদরাসার একটি কক্ষে। তাদের তিলকপুর যুব সমাজের সঙ্গে গ্রামের প্রায় দুইশ যুবক জড়িত।

তিনি আরও জানান, কয়েকজন সমাজ সেবকের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং গ্রামের যুব সমাজের সাহায্যে প্রায় ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে এ উদ্যোগটি সফল করতে পেরেছেন তারা।

শাহীন রানা জানান, যদি আরও কেউ সহায়তা করে তাহলে আমরা পুরো গ্রামে আরও ক্যামেরা সংযোজন করতে পারব। এতে এলাকা থেকে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, চাঁদাবাজি, মাদক, ইভটিজিংসহ অন্য অপকর্ম দূর হবে।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, গ্রামবাসীর এমন উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়। এরপর গ্রামে অপরাধমূলক কাজ কমে আসার কথা। আর কোন অপরাধমূলক কাজ সংঘটিত হলেও অপরাধীদের শনাক্ত করা সুবিধা হবে। এতে জনগণের পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসনও উপকৃত হবে। এজন্য পুলিশের পক্ষ থেকে এমন আধুনিক প্রযুক্তি গ্রহণ করার জন্য উৎসাহিত করা হচ্ছে।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’