জলঢাকায় ইউএনও’র রিপোর্ট বর্জনের ঘোষণা দিলেন সাংবাদিকরা

ফরহাদ ইসলাম,জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি- নীলফামারীর জলঢাকায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজাউদ্দৌলার সকল পজেটিভ রিপোর্ট বর্জনের ঘোষনা দিয়েছন স্থানীয় সাংবাদিকরা। শুক্রবার বিকেলে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জলঢাকা সাংবাদিক ঐক্য পরিষদের এক আলোচনা সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয় এবং পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তার ফেসবুক স্ট্যাটাস প্রত্যাহার এবং আনুষ্ঠানিক ভুল স্বীকার না করা পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে।

জানা যায়,গত ১০ই জানুয়ারি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ও মুজিববর্ষের ক্ষণগণনার অনুষ্ঠানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোকসজ্জা না করায় স্থানীয় সাংবাদিকরা একটি সংবাদ প্রকাশ করেন।

এ নিয়ে ইউএনও সুজাউদ্দৌলা সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে তার ফেসবুক ওয়ালে (uno jakdhaka) সাংবাদিকদের জড়িয়ে একটি আপত্তিকর মন্তব্য করে স্ট্যাটাস দেন এবং তার অনুসারিদের দিয়ে ফেসবুকে সাংবাদিকদের নিয়ে অশালীন মন্তব্য করায়। ওই পোষ্টে সাংবাদিকদের নিয়ে আপত্তিকর অংশটুকু এক সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও তার ফেসবুক ওয়াল থেকে পরিবর্তন না করায় স্থানীয় সাংবাদিকদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

অনুষ্ঠিত সভায় এসএ টিভির নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি আলহাজ্ব মাহবুবর রহমান মনির সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক সংবাদের প্রতিনিধি মৃত্যুঞ্জয় রায়,যুগান্তরের সফিকুল ইসলাম চিনু,ডেইলি নিউনেশনের শাহজাহান কবির লেলিন,সমকালের হাসিবুল ইসলাম মিতু,যায়যায়দিনের মনিরুজ্জামান লেবু,আজকালের খবরের সফিকুল ইসলাম, ডেইলি বাংলাদেশ ডু ডে’র হাফিজুুুর রহমান,ইনকিলাবের
শরিফুল ইসলাম প্রিন্স,ইত্তেফাকের তাইজুল ইসলাম তাজু,মানবজমিনের সানোয়ার বাদশা,ভোরের কাগজের কৃষ্ণ চন্দ্র রায়,খোলা কাগজের আবেদ আলী,আমার সংবাদের ফরহাদ ইসলাম,বর্তমানের রাশেদুজ্জামান সুমন,দাবানলের নাছিমুজ্জামান নাদির,জলচিত্রের সম্পাদক মাহবুব নোমান,আমাদের কন্ঠের আব্দুল মালেক,যুগের আলোর মাইদুল হাসান,ভোরের দর্পণের হাসানুজ্জামান হাসান সিদ্দিকী, মানববার্তার এরশাদ আলম,নতুন স্বপ্নের জুয়েল শাহ,একুশের বানীর মশিয়ার রহমান,নওরোজের এন আই মানিক।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’