কিশোরগঞ্জ লীড নিউজ

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে পুলিশ পেটানোর মামলায় পুরুষ শূন্য গ্রাম

নীলফামারীনিউজ, ডেস্ক রিপোর্ট- নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার পুটিমারী ইউনিয়ন কালিকাপুরে পুলিশ পেটানোর মামলায় পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে উপজেলার কালিকাপুর গ্রাম। সোমবার (২৭ এপ্রিল) পুটিমারী ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধ জেরে পুলিশ-এলাকাবাসীর মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। উক্ত সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয় কিশোরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত)। সে ঘটনায় ১২শ’ গ্রামবাসীর বিরুদ্ধের মামলা করায় পুরো গ্রাম গ্রেফতার আতঙ্কে পুরুষ শূন্য। সংঘর্ষের ঘটনায় পরিদর্শকসহ ৪ জন নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এলাকাবাসী জানায়, এই জমিতে কিছু দিন আগে বাঁশ কেটে নিয়ে যায় সাইদুল ইসলামের ও তার বাহিনী। পরে গ্রামের মৃত ঈসা উদ্দিনের ছেলে তছলিম উদ্দিন ১২ জনকে আসামি করে ১৪ মার্চ মামলা করেন। সোমবার ১১টায় পুনরায় বাঁশের মুরা তুলতে গেলে সাইদুল ইসলাম ও তার বাহিনী বাধা মুখে পরে। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শুরু হয় দু গ্রুপের সংঘর্ষ। এ সময় এলাকাবাসী ৯৯৯’এ ফোন করে পুলিশের সাহায্য চায়। খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এলে তছলিম উদ্দিনের মামলার তদন্তকারী এসআই আব্দুল ওয়হাবকে দেখে উপহাস করেন এলাকাবাসী, শুরু হয় পুলিশের সাথে কথা কাটাকাটি এক পর্যায়ে পুলিশের পরিদর্শকের উপর চড়াও হয়ে বেধড়ক মারপিট করে এলাকাবাসী, শুরু হয় উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ। সরেজমিনে গেলে এক বৃদ্ধা জানায়, ‘আমি বুড়া মানুষ পুলিশ নিয়ে গেলে যাক। যেহেতু অপরাধ করছে এলাকাবাসী। বর্তমানে বৃদ্ধা ছাড়া কোন পুরুষ নেই, গ্রেফতারের আতঙ্কে পুরুষ শূন্য হয়ে পড়ছে গ্রামটি।’