নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে নাতিকে পুলিশের আটকের দৃশ্য দেখে নানির মৃত্যু!

নীলফামারীনিউজ, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) করেসপন্ডেন্ট- নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলায় জামাইকে পিটিয়ে আহত করায় ও নাতিকে পুলিশ কর্তৃক আটকের দৃশ্য দেখে নানী হৃদয়ন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যায়।

মঙ্গলবার (০৬ মার্চ) উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়নের উত্তর চাঁদখানা প্রামানিক পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

.
সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, প্রামানিক পাড়ার ডাক্তার রমজান আলীর ছেলে আসাদুজ্জামান বাবুর সাথে একই ইউনিয়নের মোল্লা পাড়া গ্রামে দুদু মিয়ার ছেলে তাহসান হাবিব লেলিনের বদ্ধুত্বের সর্ম্পক দীর্ঘ দিনের।

এ সুবাদে আসাদুজ্জামান বাবু কিছু দিন আগে তার বন্ধুর পালসার ১৫০ সিসির মটর সাইকেলটি নিয়ে বেড়াতে যায়। এ সময় গাড়িটি খাদে পড়ে গিয়ে তেলের টেংকি ঘষা লেগে সামান্য রং উঠে যায়। বাবু গাড়িটি ফিরত দিতে গেলে দুই বন্ধুর মধ্যে কথা কাটা কাটি হয়।

গাড়ির মালিক বন্ধুর কাছে ওই গাড়ি না নিয়ে, নতুন গাড়ী কিনে দেয়ার দাবি করে। অপর বন্ধু গাড়ি কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক মাস সময় নেয়। কিন্তু আসাদুজ্জামান নির্ধারিত সময়ের মধ্যে গাড়ী কিনে দিতে না পারায় গাড়ীর মালিক লেলিন বন্ধুর বাবা কমিউনিটি উপ-সহকারী মেডিকেল অফিসার ডাক্তার রমজান আলীকে মঙ্গলবার (০৬ মার্চ) চাঁদখানা হাই স্কুলের সামনে আটক করে বেধড়ক মারপিট করে। এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

বন্ধুর বাবার অবস্থা বেগতিক দেখে লেলিন থানায় ওই দিনই বন্ধু ও তার বাবাকে অভিযুক্ত করে একটি মটর সাইকেল ছিনতাইয়ের অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ গাড়ী উদ্ধারের জন্য অভিযুক্তের বাড়িতে গিয়ে আসাদুজ্জামান বাবুকে আটক করে।

জামাতার আহতের খবর ও পুলিশ কর্তৃক নাতীকে আটকের দৃশ্য দেখে নানী শাহেদা বেগম (৭০) পুলিশের সামনেই মাটিতে পড়ে গিয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তাকে কিশোরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার শাহেদা বেগমকে মৃত্যু ঘোষনা করে। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

ডাক্তার রমজান আলী বলেন,তাদের দু-বন্ধুর মধ্যে কি হয়েছে আমি কিছুই জানিনা। সকাল ১০ টায় অফিসে যাওয়ার সময় লেলিন আমাকে রাস্তায় আটক করে মারপিট করে। পরে শুনি তাদের দু-বন্ধুর মধ্যে বাইক নিয়ে ঝামেলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বজলুর রশিদ নীলফামারীনিউজকে বলেন, ওই সময় মহিলার মৃত্যুর বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’