ঢাকায় আবারও পোশাক শ্রমিককে বাসে গণধর্ষণ, এবার ডিমলার একজনসহ আটক ৫ !

আসাদুজ্জামান সুজন, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর- ঢাকার ধামরাইয়ের কচমচ এলাকায় বাসে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক পোশাক শ্রমিক (২৪)। এ ঘটনায় রাতেই ৫ ধর্ষককে হাতেনাতে আটক করেছে ধামরাই থানা পুলিশ। রোববার (৮ এপ্রিল) দিনগত রাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের কচমচ এলাকায় যাত্রীসেবা বাসে এ গণধষর্ণের ঘটনা ঘটে।

নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার সরকারবাড়ী গ্রামের মহর লালের ছেলে বলরাম (২০) সহ আটক অন্য ধর্ষকরা হলো- ধামরাই থানার গাওয়াইল গ্রামের মো. কালু মিয়ার ছেলে মো. সোহেল রানা (২০), একই উপজেলার কেলিয়া গ্রামের মৃত রাজু সরদারের ছেলে মকবুল হোসেন (৩৮), চুয়াডাঙ্গা উপজেলার কোটপাড়া গ্রামের মৃত শফি মল্লিকের ছেলে বাবু মল্লিক (২৪), ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়ি থানার দেওখোলা গ্রামের মৃত জসিম উদ্দিনের ছেলে আব্দুল আজিজ (২৫)।

ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ভজন রায় জানান, রাত ১০টায় গার্মেন্ট ছুটির পর ওই শ্রমিক ইসলামপুর বাসায় ফিরছিলেন। পথে বখাটেরা জোর করে তাকে রাস্তা থেকে বাসে উঠিয়ে নিয়ে যায়। পরে কচমচ এলাকায় যাত্রীসেবা বাসের ভেতরে গণধর্ষণ করে। এসময় তার চিৎকারে রাস্তায় টহলরত পুলিশ এগিয়ে গিয়ে বাসের ভেতরে ঘটনা দেখে হাতেনাতে ৫ ধর্ষককে আটক করে।

ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল হক বলেন, ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে।

এর আগে গত বছরের ২৫ আগস্ট বগুড়া থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার পথে বাসের ভেতরে ঢাকার আইডিয়াল ল’ কলেজের শিক্ষার্থী জাকিয়া সুলতানা রূপাকে গণধর্ষণ ও হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় বাসের চালক এবং তিন হেলপারের মৃত্যুদণ্ড দেন আদালত। এছাড়া বাসের সুপারভাইজারকে সাড়ে সাত বছরের কারাদণ্ড এবং এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’