নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ক্লাশ বন্ধ রেখে শিক্ষার্থীদের দিয়ে ছাদে ওঠানো হচ্ছে ইট-খোয়া !

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি- নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়নের চাঁদখানা মাঝাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ষ্টুডেন্ট কাউন্সিলের নামে ক্লাশ বন্ধ রেখে শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে স্কুলের ময়লা-আবর্জনা সরানোর কাজ করান প্রধান শিক্ষক আব্দুল আজিজ।

শনিবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে চলতি শিক্ষাবর্ষের জেএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহনকারী শিক্ষার্থীদের নিবন্ধনকৃত ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের ব্যাপারে খোঁজ নিতে স্কুলে গেলে দেখা যায় এমন চিত্র। দুপুরে ক্লাশ বন্ধ রেখে প্রধান শিক্ষক স্কুলের সকল শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের আলোচনা করছেন। আলোচনা সভা শেষ করা হলে তিনি অফিসে এসে জেএসসিতে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের ব্যাপারটি সাংবাদিকদের জানান। তিনি বলেন, বোর্ড কর্তৃক ১৩২ টাকায় জেএসসিতে নিবন্ধন করার নিয়ম থাকলেও দিনাজপুর বোর্ডে যাওয়া এবং আসার জন্য যে টাকা খরচ হয় তা কোথা থেকে আসবে। আবার ৪০ভাগ শিক্ষার্থী ৩০০ টাকা করে দিবে না। এতে গড়ে ৩০০ টাকা করে নিলে প্রতিষ্ঠান থেকে কোন সমস্যা হবে না।

৮ম শ্রেণীর ছাত্র ইউসুফ আলী রোল -৪ জানান, আমি ৩০০টাকা দিয়ে নিবন্ধন করেছি এবং আমার সকল বন্ধুরাও ৩০০ টাকা করে দিয়েছে। অন্যান্য শিক্ষার্থীদের বক্তব্য নেয়ার জন্য ক্লাশে গেলে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। প্রধান শিক্ষক বেত নিয়ে দাঁড়িয়ে থেকে ছাত্রীদের হাতে ঝাড়ু দিয়ে রুমের ভিতরে থাকা মাকড়সার জাল ও মেঝে পরিস্কার করে নিচ্ছেন। আবার ছাত্রদের দিয়ে টয়লেটের ভিতরে পানি দিয়ে টয়লেট পরিস্কার কাজ করাচ্ছেন এবং অন্যান্য ছাত্রদের দিয়ে মাঠের কোণায় থাকা পতিত ইট-খোয়া বস্তায় করে ও বালতিতে করে স্কুলের ছাদের উপরে তুলছেন। এ ধরনের কার্যক্রমের ছবি তুলতে গেলে প্রধান শিক্ষক আব্দুল আজিজ সাংবাদিকদের উপরে ক্ষিপ্ত হয়।

সাংবাদিকরা ছাত্রদের দ্বারা এমন কাজ করানোর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, আমি ষ্টুডেন্ট কাউন্সিলের সদস্যদের নিয়ে এসব করছি। এ ব্যাপারে আমার আইন-কানুন ভাল জানা আছে। আপনারা চলে যেতে পারেন; আপনাদের সাথে আর কোন কথা নেই বলে তিনি অফিস কক্ষ থেকে বের হয়ে চলে যান। সাংবাদিকরা স্কুল থেকে চলে আসলে উপজেলা ছাত্রলীগের এক নেতা সংবাদটি প্রকাশ না করতে ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এ টি এম নূরল আমীন শাহ নীলফামারীনিউজকে বলেন, বিষয়টি অত্যান্ত বেদনাদায়ক। এ রকম কোন ঘটনা ঘটলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কিশোরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম মেহেদী হাসান নীলফামারীনিউজকে বলেন, স্কুলের কক্ষ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব শিক্ষার্থীদের। কিন্তু মাঠ থেকে ছাত্রদের দিয়ে ইট স্কুলের ছাদে তুলে নেয়ার বিষয়টি কায়িক শ্রমের মধ্যে পড়ে। বিষয়টি কেউ লিখিতভাবে অভিযোগ করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর অতিরিক্ত ফি আদায়ের বিষয়টি নিয়েও কেউ অভিযোগ করলে অতিরিক্ত টাকা ফেরত দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

Comments

comments

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’