তিস্তা ব্যারাজে জলঢাকার প্রভাষক ও তার বোনকে উত্ত্যক্ত, ৩ বখাটে আটক !

আসাদুজ্জামান সুজন, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর- লালমনিরহাটের দোয়ানী এলাকায় তিস্তা ব্যারাজ এলাকায় রেদওয়ান আলী নামে এক প্রভাষক ও তার ছোট বোনকে আটকে উত্ত্যক্ত ও ছিনতাইয়ের অভিযোগে নীলফামারীর জলঢাকার ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (৯ এপ্রিল) বিকালে জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তা ব্যারাজ কন্ট্রোল রুমের পাশ থেকে সাংবাদিকদের সহযোগিতায় তাদের আটক করে দোয়ানী ফাঁড়ি পুলিশ।

মামলা দায়ের পর মঙ্গলবার সকালে আটক ওই ছিনতাইকারীদের লালমনিরহাট জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলেন, নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার দক্ষিণ কাজীরহাট এলাকার খলিলুর রহমানের পূত্র আসাদুজ্জামান আকাশ, কাজীরহাট পন্তাপাড়া এলাকার আব্দুস ছামাদের মামুনুর রশিদ ও পশ্চিম বালাগ্রাম এলাকার তহিদুল ইসলামের পূত্র মাসুদ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার বিকেলে তিস্তা ব্যারাজ এলাকায় বাসদের রোডমার্চ এর সমাপনি সমাবেশ চলছিল। ওই সময় তিস্তা ব্যারাজ কন্ট্রোল রুমের পাশে দায়িত্ব পালনের জন্য অবস্থান করছিলেন কয়েকজন পুলিশ ও স্থানীয় সাংবাদিকরা। এ সময় জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি বঙ্গবন্ধু ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক রেদওয়ান আলী তার মামাতো বোনকে নিয়ে তিস্তা ব্যারাজ ঘুরতে আসে। এ সময় তাদেরকে আটকে ৪ যুবক প্রথমত উক্ত প্রভাষকের মানিব্যাগ ছিনতাই করে নেয়। পরে তার ছোট বোনকেও উত্ত্যক্ত করে। বিষয়টি দেখতে পেয়ে দোয়ানী পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ আব্দুর রাজ্জাক ও হাতীবান্ধা প্রেসক্লাব সভাপতি ইলিয়াস বসুনিয়া পবনসহ উপস্থিত সাংবাদিকরা এগিয়ে আসলে ওই ৪ ছিনতাইকারী পালিয়ে যেতে চেষ্টা করে। পুলিশ ও সাংবাদিক ধাওয়া করে তাদের ৩ জনকে আটক করে হাতীবান্ধা থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় ওই প্রভাষকের ছোট বোন রাতেই বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নীলফামারীনিউজকে জানান, আটককৃত ৩ ছিনতাইকারীকে আজ মঙ্গলবার (১০ এপ্রিল) সকালে লালমনিরহাট জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’