ফলোআপ: ঢাকায় চলন্ত বাসে ধর্ষণ; ডিমলার একজনসহ আটক পাঁচজন রিমান্ডে

আসাদুজ্জামান সুজন, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর- রাজধানীর অদূরে ধামরাইয়ে চলন্ত বাসে ধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বাসটির চালকসহ পাঁচজনের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার (১০ এপ্রিল) ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আতিকুল ইসলাম এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন- বাসচালক চুয়াডাঙ্গা সদরের বাবু মল্লিক (২৪), নীলফামারী জেলার ডিমলার বলরাম (২০), ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ার আবদুল আজিজ (৩০), ধামরাইয়ের দক্ষিণ গাওয়াইল গ্রামের সোহেল রানা (২০) ও একই উপজেলার দক্ষিণ কেলিয়া গ্রামের মকবুল হোসেন (৩৮)।

ধামরাই থানা পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, ধামরাইয়ের শ্রীরামপুর গ্রাফিকস টেক্সটাইল কারখানার এক পোশাক শ্রমিক ছুটি হওয়ার পর তার ভাড়া বাসা ইসলামপুরে ফেরার উদ্দেশে রাত ৯টার দিকে শ্রীরামপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে যাত্রীসেবা পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন।

বাসটি কালামপুরে আসার পর অন্য যাত্রীদের নামিয়ে দেয়। পরে বাসটি ঢাকার দিকে না এসে এদিক-ওদিক ঘুরাতে থাকে। পরে আবার ইসলামপুরের দিকে রওনা দিয়ে কেলিয়া এলাকা থেকে আরও তিনজনকে বাসে তোলে। যাত্রীবেশে ওঠা ওই তিনজনসহ বাসের হেলপার ও সুপারভাইজার হঠাৎ ওই পোশাককর্মীকে বাসের পিছন দিকে নিয়ে হাত, মুখ ও পা বেঁধে ফেলে।

এরপর তিনজন তাকে ধর্ষণ করে। পরে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের কেলিয়া ব্রিজের পশ্চিম পাশে বাস থামিয়ে চালকসহ অন্য দু’জন ধর্ষণ করতে গেলে মুখের বাঁধন খুলে চিৎকার দেয় ধর্ষিতা। এ সময় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে টহলরত ধামরাই থানার এসআই ভজন রায় টের পেয়ে বাসটি ধাওয়া দিয়ে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের কেলিয়া ব্রিজের পূর্বপাশ থেকে বাসসহ ধর্ষণকারীদের আটক করেন।

এ সংশ্লিষ্ট আগের সংবাদটি পড়ুন-

ঢাকায় আবারও পোশাক শ্রমিককে বাসে গণধর্ষণ, এবার ডিমলার একজনসহ আটক ৫ !

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’