নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা ও অবিভাবক সমাবেশ

খাদেমুল মোরসালিন শাকীর, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) করেসপন্ডেন্ট- নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা শহরের শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কিশোরগঞ্জ পাবলিক স্কুলের পিএসসি ও জেএসসিতে এ প্লাস পাওয়া শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও অবিভাবক সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল) বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সংবর্ধনা ও অবিভাবক সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

স্কুলের সভাপতি আবু হানিফ শেখ জুয়েলের সভাপতিত্বে ও প্রধান শিক্ষক কামরুজ্জামানের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন- কিশোরগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আনিছুল ইসলাম আনিছ।

এতে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা কোহিনুর ফেরদৌসী, উপজেলা সহকারী কৃষি কর্মকর্তা লিয়াকত আলী, কিশোরগঞ্জ কেশবা মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সফিকুল ইসলাম, দৈনিক বায়ান্নর আলো ও নীলফামারীনিউজের কিশোরগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি ডা.খাদেমুল মোরসালিন শাকীর।

সকাল ১০ টা থেকে বিরতিহীন ভাবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত অবিভাবক সমাবেশ, কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা, ক্রীড়া প্রতিযোগীতার পুরুস্কার বিতরণ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে। পুরুস্কার বিতরণের পর স্কুলের শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে পরিবেশন করা শিক্ষা মূলক কয়েকটি নাটিকা, কৌতুক ও মনকারা নৃত্য।

উল্লেখ্য যে, গত বছরের পিএসসি পরীক্ষায় পাবলিক স্কুল থেকে ২৭জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়ে শতভাগ এ প্লাস পেয়ে সফলতা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। পিএসসি সমাপনি পরীক্ষায় ২৭ জনের মধ্যে ১১জন ট্যালেন্টপুল বৃত্তি ও ৩ জন সাধারণ বৃত্তি পেয়ে কিশোরগঞ্জ পাবলিক স্কুলকে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করার সুযোগ করে দিয়েছে মেধাবী শিক্ষার্থীরা। অপরদিকে জেএসসিতে ৪৩ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে শতভাগ পাশ করে এবং ১৪ জন এ প্লাস লাভ করে।

২০১৫ সালের জানুয়ারী মাসে স্কুল প্রতিষ্ঠার পর ৩ শতাধিক শিক্ষার্থী ও ৯জন শিক্ষক কর্মচারী নিয়ে স্কুল গঠন করা হলেও বর্তমানে ৬ শতাধিক শিক্ষার্থী ওই প্রতিষ্ঠানে অধ্যায়নরত। শিক্ষার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সংস্কৃতিতে রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একটি শক্ত অবস্থান।

এ ব্যাপারে স্কুলের প্রধান শিক্ষক কামরুজ্জামান নীলফামারীনিউজকে বলেন, এ বছরে শিক্ষার্থীদেরকে ডিজিটাল পদ্ধতির মাধ্যমে পাঠদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে এবং আগামীতে সকল শ্রেণী কক্ষে প্রজেক্টরের মাধ্যমে সকল ক্লাশে পাঠদান করা হবে।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’