মুক্তিযোদ্ধা কোটা অযৌক্তিক : সৈয়দপুরে এরশাদ

এম এ মোমেন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট- জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, মুক্তিযোদ্ধা কোটা অযৌক্তিক। ছাত্ররা বিক্ষুব্ধ হয়েই আন্দোলনে গেছে। প্রধানমন্ত্রী এটা উপলব্ধি করতে পেরে কোটা বাতিল করেছেন। আমার মনে হয় একবারে বাতিল করা ঠিক হবে না। তবে যদি এটা কম করে দেয়া হয় তাহলে ভালো হবে।

শনিবার (১৪ এপ্রিল) রংপুরের কর্মী সম্মেলনে যাওয়ার পথে নীলফামারীর সৈয়দপুরের বাঙ্গালীপুর সরকারপাড়ায় সংসদ সদস্য শওকত চৌধুরীর বাসায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

.
তিনি বলেন, নির্বাচন হোক আমরাও চাই। নির্বাচন মানেই সিল মারা। নির্বাচন যদি সুষ্ঠু হয় তাহলে জাতীয় পার্টি বিপুলভাবে বিজয়ী হবে। আমরা কারো সাথে নেই বরং তারাই আমাদের সাথে। আমরা বিরোধী দল। আগামীতে আমরা এককভাবে নির্বাচন করবো এবং ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবো। আমরা ছাড়াতো আর কোনো দল নেই।

এরশাদ বলেন, বিএনপির অবস্থা ছিন্ন ভিন্ন। তারা নির্বাচনে আসতে পারবে কিনা জানি না। আর সরকারের যে অবস্থা, সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে। আরো অনেক বিষয় ঘটছে। এ ব্যাপারে আমি কমেন্টস করতে চাই না। তবে এবার জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় যাওয়ার পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে।

খুলনা ও গাজীপুর সিটি নির্বাচনে জাপা প্রার্থী দেয়নি কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, অর্থের অভাবে এবং ভালো প্রার্থী না পাওয়ায় প্রার্থী দেয়া হয়নি। রংপুরের সিটি নির্বাচনে আমরা ব্যাপকভাবে বিজয়ী হয়েছি। তাই খারাপ রেজাল্ট করতে চাই না। তাছাড়া এখন আমাদের প্রধান উদ্দেশ্য জাতীয় নির্বাচন এবং লক্ষ্য হলো ক্ষমতায় যাওয়া।

এ সময় এরশাদের সফর সঙ্গী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ এমপি, মেজর অব. খালেদ আখতার, সংসদ সদস্য শওকত চৌধুরী প্রমুখ।

Comments

comments

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’