নীলফামারীতে আদালতের নির্দেশে ছয় মাস ১৫ দিন পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন

নীলফামারীনিউজ, সদর করেসপন্ডেন্ট- নীলফামারীতে আদালতের নির্দেশে আবু তালেব (৩৫) নামে এক ব্যক্তির লাশ দাফনের ছয় মাস ১৫ দিন পর কবর থেকে উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আবু তালেবকে হত্যা করা হয়েছে, স্বজনদের এমন অভিযোগের পর আদালতের নির্দেশে রোববার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সোহরাব হোসেনের উপস্থিতিতে স্থানীয় কবরস্থান থেকে মৃতদেহ উত্তোলন করা হয়।

.
আবু তালেব জেলা সদরের চওড়াবড়গাছা ইউনিয়নের দক্ষিণ চওড়া গ্রামের মৃত নাসের আলীর ছেলে।

আবু তালেবের মেজো ভাই আবু সায়েম নীলফামারীনিউজকে জানান, গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর রাতে অামার বড়ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর তার শোয়ার ঘরে মৃতদেহ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার প্রচারণা চালায়।

এ ঘটনায় ১৫ দিন পর সাতজনকে আসামি করে নীলফামারী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

নীলফামারী সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসঅাই) জহুরুল ইসলাম বলেন, মামলার দীর্ঘ শুনানির পর আদালতের নির্দেশে রোববার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে একজন ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে কবর থেকে লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের পর পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’