রমজানে নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে রংপুর: ডিআইজি

নীলফামারীনিউজ, ডেস্ক রিপোর্ট- বাংলাদেশ পুলিশ রংপুর রেঞ্জ উপ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) খন্দকার গোলাম ফারুক বলেছে, ‘রংপুর বিভাগকে রমজান ও ঈদ উপলক্ষে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হবে। রংপুর বিভাগের শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় এবং মাদক-সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ গড়তে বিশেষ ভূমিকা রাখায় পুলিশ কর্মকর্তাদের সদা সজাগ থাকতে হবে। সমাজের প্রত্যেক মানুষ যেন আইনের সেবা পায় তা নিশ্চিত করতে হবে।’

বুধবার (১৬ মে) দুপুরে পবিত্র রমজান ও ঈদ-উল-ফিতরে আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে ডিআজি সভাকক্ষে রংপুর রেঞ্জ পুলিশের মাসিক অপরাধ ও আইন-শৃঙ্খলা পর্যালোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ডিআইজি আরও বলেন, ‘রংপুর একটি শান্তির শহর। তাই আগামী রমজান ও ঈদ উপলক্ষে এই রংপুর বিভাগের প্রতিটি এলাকায় পুলিশ বাহিনীসহ প্রশাসন শান্তি বজায় রাখতে মাঠে কাজ করবে। প্রতিটি গুরুত্বপুর্ণ এলাকাসহ মার্কেটগুলো পুলিশ বাহিনীর পাশাপাশি র‌্যাব ও সাদা পোশাকধারী আইন-শৃংঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মাঠে থাকবে। তারা ব্যবসায়ী ও ক্রেতাসহ সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা বজায় রাখতে সর্বক্ষণ মাঠে থাকবে। এছাড়াও মাদক, জাল টাকা ও ছিনতাই রোধে কাজ করবে।’

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- রংপুর রেঞ্জ পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি (অপরাধ ও অভিযান) চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির, অতিরিক্ত ডিআইজি মজিদ আলী, রংপুর পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার ফারহাত আহমেদ, গাইবান্ধা পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান মিয়া, লালমনিহাট পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক, কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম, দিনাজপুর পুলিশ সুপার হামিদুল আলমসহ রংপুর বিভাগের আট জেলার পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে রংপুর রেঞ্জের গত মাসের অপরাধ পরিস্থিতি, গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যালোচনাসহ আইন-শৃঙ্খলা ও অপরাধ বিষয়ক অন্যান্য বিষয়াদি নিয়ে সভায় শ্রেষ্ঠ মাদক ও চোরাচালান মালামাল উদ্ধারকারি অফিসার লালমনিরহাট সদর থানার এসআই মোস্তফা কামাল, শ্রেষ্ঠ মামলা তদন্তকারি অফিসার দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ থানার এসআই আবু তালেব ও পঞ্চগড় সদর থানার এসআই কানন সরকার, শ্রেষ্ঠ ডিবি অফিসার গাইবান্ধা ডিবির এসআই মমিরুল হক, শ্রেষ্ঠ ট্রাফিক ইউনিট হিসাবে দিনাজপুর সদর ট্রাফিক ইউনিট ও শ্রেষ্ঠ সার্কেল হিসাবে ঠাকুরগাও সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খায়রুল আলমকে কৃতিত্বপূর্ণ সাফল্যের জন্য পুরস্কার দেয়া হয়।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’