ডিমলায় নারী এনজিও কর্মীর ঘরে বিবাহিত যুবক, অত:পর…

বাদশা সেকেন্দার ভুট্টু, ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি- সোমবার (৩০ জুলাই)  ডিমলা উপজেলা খগা খড়িবাড়ী ইউনিয়নের আরডিআরএস অফিসের পার্শ্বে জনৈক বাবুলের বাসায় ভাড়াটে উক্ত ইউনিয়নের শার্প (এনজিও) এর মহিলা কর্মী শাপলা আক্তার (২০) পিতা- মহিত উদ্দিন, গ্রাম- টেংগনমারী হাজীপাড়া ও ডিমলা খালিশা চাপানী আইনুল হক মাদ্রাসা এলাকার জনৈক জামিনুর রহমানের পুত্র আশরাফুল ইসলাম (২৮) অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকায় বাসা মালিক ও এলাকাবাসী আটক করেন।

এ ঘটনার খবর পেয়ে ডিমলা থানা পুলিশ এস.আই সবুজ, এস.আই বিকাশ ও সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে গিয়ে ছেলে-মেয়েকে থানায় নিয়ে আসেন। এ প্রসঙ্গে শাপলা আক্তারকে স্থানীয় ইউ.পি সদস্য বুলু মিয়া ও রুহুল আমিন ছেলেটিকে বিয়ে করার কথা বললে শাপলা আক্তার অসম্মতি জানায়।

আশরাফুল বলে, ৩ মাস আগে আমি বিয়ে করেছি অন্যত্র। এ ঘটনায় শার্প এর কর্মকর্তা আহসানুল হক বলেন, এনজিওতে দু’কারনে চাকুরী যায়। এক হলো অর্থ কেলেংকারী অপরটি চরিত্রগত ত্রুটি।

এ বিষয়ে ডিমলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মফিজ উদ্দিন শেখ বলেন- ছেলে-মেয়েকে আমরা উদ্ধার করেছি তবে উভয় পক্ষের কোন অভিযোগ না থাকায় এবং ছেলে-মেয়ে প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’