ডিমলায় পাথর উত্তোলনের গভীর খাদ হতে গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার

বাদশা সেকেন্দার, ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি-  গত ১৪ আগষ্ট ডিমলা উপজেলার টেপা খড়িবাড়ী ইউনিয়নের দক্ষিন খড়িবাড়ী গ্রাম হতে রেনুফা বেগম (৫৫) ৩ সন্তানের জননীর কোমড়ে ইট বাধা মৃত্যুদেহ পাথর উত্তোলনের গভীর খাদ হতে উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, রেনুফা বেগম ১৩ আগষ্ট সন্ধ্যা ৭ টা হতে নিখোঁজ হন। গ্রামের সব জায়গায় খুঁজে তার পরিবারের লোক তাকে না পেয়ে বাড়ীর ২০০ গজ দূরে পাথর উত্তোলনের গভীর খাদে জেলের জাল দ্বারা তল্লাসী করলে ১৪ আগষ্ট দুপুর ১ টার সময় মৃতদেহের কোমড়ে বস্তায় ইট বাধা অবস্থায় লাশ উদ্ধার করেন ডিমলা থানার এস.আই সুলতান সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থল থেকে মৃতদেহটি থানায় নিয়ে আসেন এবং মৃত গৃহবধূর পরিবারের লোকজনকে সন্ধ্যায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিমলা থানায় নিয়ে আসে জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেয়। এলাকাবাসী এবং অনেকে মনে করছেন এটা হত্যা কি আত্মহত্যা এ ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য একটি মহল পায়তারা চালাচ্ছে।

মৃতগৃহবধুর ১ কন্যা ২ পুত্র রয়েছে। এ বিষয়ে ডিমলা থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা বলেন আমরা লাশটি উদ্ধার করেছি এবং ময়না তদন্তের জন্য আজ বুধবার সকালে নীলফামারী মর্গে প্রেরণ করেছি এবং এই গৃহবধূ হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচনের জন্য আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’