ডিমলায় তিস্তার ভাঙ্গনে নদী গর্ভে বিলীন বসতভিটা ও ফসলি জমি

বাদশা সেকেন্দার, ডিমলা (নীলফামারী) করেসপন্ডেন্ট- নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার টেপা খড়িবাড়ী ইউনিয়নের বান্নিরঘাট, তিস্তার বাজার, তেলির বাজার সহ বিভিন্ন এলাকার শত-শত কৃষকের ফসলী জমি নদী ভাঙ্গনে তিস্তাগর্ভে বিলিন হয়ে যাচ্ছে। অনেক কৃষক এক-আধ বিঘা জমির ধান কেটে পশু খাদ্য রূপে বিক্রয় করছেন ডিমলা শহরে এসে।

উল্লেখিত ইউনিয়নের কৃষক জয়নাল ও বাবুল হোসেন, আনোয়ার হোসেন, ফারুক মন্ডল, হামিদুল ইসলাম ও আব্দুল করিম জানালেন- তাদের ছাব্বিশ বিঘা জমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। সামান্য দুই বিঘা জমির মামুন-শর্ণ ধান কেটে ৫/- টাকা আটি হিসাবে ডিমলা সহ বিভিন্ন হাট-বাজারে গরুর খাদ্য হিসাবে বিক্রি করছি। কত আশা-স্বপ্ন ছিল এ ফসল ঘরে তুলে বউ ছেলে-মেয়ে নিয়ে দুই-বেলা দুই- মুঠো অন্নের জোগাড় হবে কিন্তুু নিয়তির কারনে তা আর হলো না। ছেলে-মেয়ে নিয়ে অন্ধকার ভবিষ্যৎ দেখছি।

এ বিষয়ে সরকারের নিকট এলাকার অভিজ্ঞজনেরা দাবী জানান ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা প্রস্তুুত করে এসব কৃষকদের যথাযথ সহায়তা প্রদান করা হউক। এসব কৃষককে রক্ষার জন্য কৃষি বিভাগের এগিয়ে আসা প্রয়োজন বলে মনে করছেন কৃষকেরা।

এ বিষয়ে উক্ত ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম সাহিন নীলফামারীনিউজকে জানান, অত্র ইউনিয়নে আমন ধানের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানান।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ।’

‘সব ধরনের ঘটনা আমাদের জানাতে ০১৭১০৪৫৪৩০৬ নাম্বারে কল করুন।’