যমুনা টিভির সাংবাদিকসহ ১০ জনকে সম্মাননা প্রদান

নীলফামারীনিউজ, ডেস্ক রিপোর্ট- স্ব স্ব ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানে সামাজিক স্বীকৃতি স্বরুপ যমুনা টিভির পাবনা প্রতিনিধি সনম রহমানসহ ১০ জনকে মশাল সম্মাননা-২০১৮ প্রদান করেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মশাল।

সোমবার সন্ধ্যায় ক্যাফে পাবনা রেষ্টুরেন্টে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়। সংগঠনটির দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে তারা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে প্রফেসর মনোয়ার হোসেন জাহেদীকে (শিক্ষা), ছিফাত রহমান সনমকে (মানব কল্যাণে সাংবাদিকতা- যমুনা টিভি ও দৈনিক ইছামতি), খালেদ হোসেন পরাগ (আলোকচিত্র শিল্পী, পরিচালক হেডে ক্রিয়েটিভ গ্রুপ), অম্লান দত্ত অভি (সাংস্কৃতি,পরিচালক বাচনশৈলী), কামরুজ্জামান স্বপন (ক্রীড়া-হকি খেলোয়াড়), মহিউদ্দিন শেখ (কৃষি), আসাদুর রহমান রুপম (প্রচার বিমুখ কবি), নাতাশা ইসলাম-রাকিব নওয়ার ও সাদিক হোসেনকে (স্বপ্নবাজ) এই সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এছাড়াও সম্মাননা দেওয়া হয় ‘ফুলের শহর পাবনা পিপীলিকার ভাবনা’ এই শ্লোগানে কাজ করা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পিপীলিকাকে। সদস্যদের সাথে নিয়ে পিপীলিকার পক্ষে সংগঠনের পরিচালক ইলিয়াস আহমেদ হিমেল রানা সম্মাননা গ্রহণ করেন।

মশাল এর প্রধান সমন্বয়ক ডা. আহমেদ মোস্তফা নোমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর শিবজিত নাগ। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর মনোয়ার হোসেন জাহেদী, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর আব্দুল করিম ও পাবনা প্রেসক্লাবের সম্পাদক আঁখিনূর ইসলাম রেমন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন মশালের সমন্বয়ক জামিল আহমেদ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জ্ঞানের মশালের সমন্বয়ক এস এম আদনান উদ্দিন ও মাহফুজুর রহমান শ্রাবন।

অনুষ্ঠানের শুরতেই মহান স্বাধীনতা যুদ্ধসহ সকল প্রগতিশীল আন্দোলনে শহীদ ও নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সকলে সম্মিলিতভাবে দাঁড়িয়ে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে সূচনা করা হয় অনুষ্ঠানের। অনুষ্ঠানে সাধারণ মানুষের কল্যাণে ও সমাজ আলোকিত করার দায়িত্ববোধ এবং দায়বদ্ধতা থেকে নিজ নিজ পরিসর থেকে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সকলে। শেষে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অসংখ্য সুধীজন অংশ নেন এই আয়োজনে।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’