শ্বশুর বাড়িতে নিজের স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করল নীলফামারীর যুবক!

নীলফামারীনিউজ, ডেস্ক রিপোর্ট- ইনুরা বেগম (৩৮) নামের এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। দাম্পত্য কলহের জেরে ওই গৃহবধূকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছেন স্থানীয়রা। আজ শনিবার দুপুরে পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলা সদরের কলেজপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পরই ওই গৃহবধূর স্বামী আবুল কালাম পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানায়, প্রায় ২৫ বছর আগে দেবীগঞ্জ এলাকার ইনতাজ আলীর মেয়ে ইনুরা বেগমের সাথে নীলফামারী জেলা সদরের ধোবাডাঙ্গা এলাকার ফরহাদ মুন্সির ছেলে আবুল কালামের সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই আবুল কালাম দেবীগঞ্জ উপজেলা সদরের নতুনবন্দর এলাকায় তার শ্বশুরবাড়ির কাছেই বাড়ি করে বসবাস করতো। তাদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে সন্তান রয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে আবুল কালাম ও তার স্ত্রী ইনুরা বেগমের মধ্যে দাম্পত্য কলহ চলে আসছিল। এ নিয়ে বিচার শালিসও হয়েছে। এই কলহের জেরে গত এক মাস আগে আবুল কালাম ইনুরাকে মারধর করলে সে স্বামীর বাড়ির থেকে কয়েকশ মিটার দূরে কলেজপাড়ায় তার বাবার বাড়িতে চলে যায়। তারপর থেকে সেখানেই অবস্থান করছিল।

শনিবার দুপুরে হঠাৎ আবুল কালাম তার শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে তার স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। এ সময় গৃহবধূর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে পালিয়ে যায় কালাম। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে দেবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

দেবীগঞ্জ থানার ওসি রবিউল হাসান সরকার ওই গৃহবধূকে হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ওই গৃহবধূকে তার স্বামী নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। ওই নারীর লাশ সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অভিযুক্ত আবুল কালামকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

‘এই গণমাধ্যমে প্রকাশিত কোন সংবাদ বা তথ্য কপি/পেষ্ট করে প্রকাশ করা কপিরাইট আইনে অবৈধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ।’